Don't Miss
Home / Int. Law & Charter / Freedom of Association / সংগঠনের স্বাধীনতা এবং সংঘবদ্ধ হওয়ার অধিকার সংরক্ষণ কনভেনশন ১৯৪৮

সংগঠনের স্বাধীনতা এবং সংঘবদ্ধ হওয়ার অধিকার সংরক্ষণ কনভেনশন ১৯৪৮

১৯৪৮ সালের ৯ই জুলাই আর্ন্তজাতিক শ্রম সংস্থার ৩১তম সেশনের  সাধারণ সভায় গৃহীত এবং অনুচ্ছেদ ১৫ অনুসারে ১৯৫০ সালের ৪ঠা জুলাই কার্যকর, আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সাধারণ সভায়, সানফ্রান্সিসকোতে আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের গভর্ণিং বডি কর্তৃক দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং ১৯৪৮ সালের ১০ ই জুন ৩১তম অধিবেশনে মিলিত হওয়ার প্রেক্ষিতে, কনভেনশন আকারে ৩১তম সেশনের ৭ম এজেন্ডা সংগঠনের স্বাধীনতা এবং সংঘবদ্ধ হওয়ার অধিকার সংরক্ষণ সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রস্তাব গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত সাপেক্ষে,

সংগঠনের স্বাধীনতা এবং সংঘবদ্ধ হওয়ার অধিকার সংরক্ষণ কনভেনশন ১৯৪৮

১৯৪৮ সালের ৯ই জুলাই আর্ন্তজাতিক শ্রম সংস্থার ৩১তম সেশনের  সাধারণ সভায় গৃহীত এবং অনুচ্ছেদ ১৫ অনুসারে ১৯৫০ সালের ৪ঠা জুলাই কার্যকর, আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সাধারণ সভায়, সানফ্রান্সিসকোতে আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের গভর্ণিং বডি কর্তৃক দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং ১৯৪৮ সালের ১০ ই জুন ৩১তম অধিবেশনে মিলিত হওয়ার প্রেক্ষিতে, কনভেনশন আকারে ৩১তম সেশনের ৭ম এজেন্ডা সংগঠনের স্বাধীনতা এবং সংঘবদ্ধ হওয়ার অধিকার সংরক্ষণ সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রস্তাব গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত সাপেক্ষে, শ্রমমান এবং শান্তি প্রতিষ্ঠার উপায় হিসাবে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার গঠনতন্ত্রের প্রস্তাবনার ঘোষণা “সংগঠন করার স্বাধীনতার স্বীকৃতির নীতি” বিবেচনা সাপেক্ষে, “সংগঠন করার এবং ভাব প্রকাশ করার স্বাধীনতা টেকসই উন্নয়নে অত্যন্ত প্রয়োজনীয়”-ফিলাডেলফিয়া ঘোষণার এই ইচ্ছা বিবেচনায়, আন্তর্জাতিক নিয়মের ভিত্তি হিসাবে আস্তর্জাতিক শ্রম সম্মেলনের ৩১তম অধিবেশনে এসব নীতিসমূহ গৃহীত হয় এবং এক বা একাধিক আন্তর্জাতিক কনভেনশন গৃহীত  হতে পারে এই মর্মে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থাকে প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার অনুরোধ বিবেচনায়, ১৯৪৮ সালের ৯ই জুলাই “সংগঠনের স্বাধীনতা এবং সংঘবদ্ধ হওয়ার অধিকার সংরক্ষণ” নামক এই কনভেনশন ১৯৪৮ সালে গ্রহণ করে।

  পরিচ্ছেদ ১

সমাবেশের স্বাধীনতা

 অনুচ্ছেদ-১

আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার প্রত্যেক সদস্য যাদের উপর এই কনভেনশন বলবত্‍ তারা নিম্নলিখিত শর্তসমূহ কার্যকরীকরণে দায়বদ্ধ।

 অনুচ্ছেদ-২

শ্রমিক এবং কর্মচারী এই পার্থক্য ব্যতিরেকে, সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের নিয়ম সাপেক্ষে পূর্ব অনুমতি ছাড়াই নিজের সংগঠনে যোগদান করা

এবং প্রতিষ্ঠা করার অধিকার রয়েছে।

 অনুচ্ছেদ-৩

১. শ্রমিক এবং কর্মচারীদের সংগঠনসমূহের গঠনতন্ত্র এবং নিয়মকানুন তৈরী করা, পূর্ণ স্বাধীনতা সহকারে প্রতিনিধি নির্বাচন করা, প্রশাসনিক কার্যক্রম সংগঠিত করা ও কর্মসূচী গ্রহণ করা।

২. এই অধিকার ভোগে সীমাবদ্ধতা করা বা বাধাগ্রস্ত করা মূলক কাজ থেকে সরকারী কর্তৃপক্ষ বিরত থাকবে।

 অনুচ্ছেদ-৪

প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ কর্তৃক শ্রমিক এবং কর্মচারীদের সংগঠনসমূহকে ভেঙ্গে দেওয়া বা স্থগিত করা যাবে না।

 অনুচ্ছেদ-৫

শ্রমিক এবং কর্মচারীদের সংগঠনসমূহের অবশ্যই ফেডারেশন এবং কনফেডারেশন বা অনুরূপ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করার বা যোগদান করার অধিকার রয়েছে। ফেডারেশন এবং কনফেডারেশনসমূহের শ্রমিক এবং কর্মচারীদের আন্তর্জাতিক সংস্থাসমূহের সাথে সংযুক্ত হওয়ার অধিকার থাকবে।

 অনুচ্ছেদ-৬

অনুচ্ছেদ ২,৩ এবং ৪ এর বিধানসমূহ শ্রমিক এবং কর্মচারীদের েফডারেশন এবং কনফেডারেশনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

 অনুচ্ছেদ-৭

শ্রমিক এবং কর্মচারীদের সংগঠনসমূহ, ফেডারেশন এবং কনফেডারেশনের আইনগত সত্বা অর্জনের ক্ষেত্রে এমন শর্ত  আরোপ করা যাবে না যা অনুচ্ছেদ ২,৩ এবং ৪ এর প্রয়োগ ক্ষেত্রকে সীমাবদ্ধ করে।

 অনুচ্ছেদ-৮

১. শ্রমিক এবং কর্মচারীদের সংগঠনসমূহকে এই কনভেনশনে প্রদত্ত অধিকার সমূহ প্রয়োগের ক্ষেত্রে অন্যান্য সংগঠন সমূহের মতন রাষ্ট্রীয় আইন মেনে চলতে হবে।

২. রাষ্ট্রীয় আইন এমন হবে না যা কনভেনশনে বর্ণিত অধিকার প্রয়োগে বাধা সৃষ্টি করবে  বা অধিকার ভোগে বাধা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত হবে।

 অনুচ্ছেদ-৯

১. কনভেনশনে বর্ণিত অধিকার সমূহের যতটুকু সেনাবাহিনী এবং পুলিশের জন্য প্রযোজ্য তা রাষ্ট্রীয় আইন-কানুন কর্তৃক নির্ধারিত হবে।

২. আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার গঠনতন্ত্রের অনুচ্ছেদ ১৯ এর ৮ম প্যারায় বর্ণিত নীতি অনুসারে, যেকোন সদস্যরাষ্ট্র কর্তৃক এই কনভেনশন অনুমোদন প্রচলিত আইন, রোয়েদাদ, প্রথা বা চুক্তিকে প্রভাবিত করবে না যার বলে সেনাবাহিনী বা পুলিশের কোন সদস্য এই কনভেনশনে বর্ণিত অধিকার ভোগ করতে না পারে।

 অনুচ্ছেদ-১০

এই কনভেনশনে বর্ণিত “সংগঠন” বলতে শ্রমিকদের এবং কর্মচারীদের সংগঠনসমূহকে বোঝাবে যা শ্রমিক এবং মালিক স্বার্থকে রক্ষা করবে।

 পরিচ্ছেদ ২

সংগঠিত হবার অধিকার

 অনুচ্ছেদ -১১

শ্রমিক এবং কর্মচারীগণ যাতে স্বাধীনভাবে সংগঠিত হবার অধিকার ভোগ করতে পারে সেজন্য আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার প্রত্যেক

সদস্যরাষ্ট্র, যাদের উপর এই কনভেনশন বলবত, সকল প্রয়োজনীয় এবং কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

 পরিচ্ছেদ ৩

বিবিধ

 অনুচ্ছেদ -১২

১. ১৯৪৬ সালে সংশোধিত আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার গঠনতন্ত্রের ৩৫ অনুচ্ছেদের ৪র্থ এবং ৫ম প্যারায় বর্ণিত এলাকা ব্যতীত বাকি অনুচ্ছেদে বর্ণিত এলাকার ক্ষেত্রে, সংস্থার প্রত্যেক সদস্য যারা এই কনভেনশন অনুমোদন করেছে বা অনুমোদনের পর যত শীঘ্র সম্ভব আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের মহাপরিচালককে নিম্নলিখিত বিষয়ে ঘোষণা প্রদান করবে-

          ক. কোন কোন এলাকার ক্ষেত্রে এই কনভেনশনের বিধানসমূহ পরিবর্তন ব্যতিরেকে প্রযোজ্য হবে;

          খ. কোন কোন এলাকার ক্ষেত্রে এই কনভেনশনের বিধানসমূহ পরিবর্তন সাপেক্ষে প্রযোজ্য হবে এবং তার বিস্তারিত;

          গ. কোন কোন এলাকার ক্ষেত্রে এর সিদ্ধান্ত সংরক্ষিত;

২. এই অনুচ্ছেদের ১ম প্যারার ১ম ও ২য় অংশে বর্ণিত দায়িত্ব গ্রহণ অনুমোদনের অবিচ্ছেদ্য অংশ এবং অনুমোদনযোগ্য।

৩. কোন সদস্যরাষ্ট্র এই অনুচ্ছেদের ১ম প্যারার ২য়, ৩য় ও ৪র্থ অংশে বর্ণিত কারণে মূল ঘোষণায় যদি শর্ত সংরক্ষণ করে থাকেন

তবে পরবর্তী যেকোন সময়ে কনভেনশন সম্পূর্ণভাবে বা আংশিকভাবে বাতিল করতে পারেন।

৪. যেকোন সদস্যরাষ্ট্র যেকোন সময় পূর্বের যেকোন ঘোষণার শর্তসমূহের পরিবর্তন এবং উক্ত এলাকার বর্তমান অবস্থা বর্ণণা করে এই কনভেনশনের অনুচ্ছেদ ১৬ অনুসারে মহাপরিচালককে বাতিল নোটিশ প্রদান করতে পারেন।

  অনুচ্ছেদ-১৩

 ১. যেখানে এই কনভেনশনের বিষয়বস্তু কোন নন-মেট্রোপলিটন এলাকার নিজস্ব শাসনাধীনে থাকে সেক্ষেত্রে ঐ এলাকার আন্তর্জাতিক সম্পর্ক উন্নয়নে দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্য কে ঐ এলাকার পক্ষে এই কনভেনশনের আওতাধীন দায়দায়িত্বের ঘোষণা আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের  মহাপরিচালককে অবহিত করবে।

           ২.  নিম্নলিখিত উপায়ে আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের পরিচালক বরাবরে দায়দায়িত্ব গ্রহণমূলক ঘোষণা প্রদান করা যেতে পারেঃ

               ক. কোন নির্দ্দিষ্ট এলাকার যৌথ কর্তৃত্বে থাকা কনভেনশনের দুই বা ততোধিক সদস্যরাষ্ট্রের মাধ্যমে।

               খ. ঐ নির্দ্দিষ্ট এলাকা পরিচালনার ক্ষেত্রে জাতিসংঘ সনদ বা অন্য কোনভাবে দায়িত্বপ্রাপ্ত আন্তর্জাতিক কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে।

           ৩. এই অনুচ্ছেদের পূর্ববর্তী প্যারাসমূহ অনুসারে পরিচালক বরাবরে প্রদত্ত ঘোষণা নির্দেশ করে – সংশ্লিষ্ট এলাকার ক্ষেত্রে কনভেনশনের বিধানসমূহ কি পরিবর্তন ব্যতিরেকে না পরিবর্তন সহকারে প্রযোজ্য হবে। তবে যেক্ষেত্রে উক্ত ঘোষণা পরিবর্তিত আকারে প্রযোজ্য হবে এমন ইঙ্গিত বহন করে সেক্ষেত্রে বিস্তারিতভাবে পরিবর্তনের বিষয়টি জানাতে হবে।

            ৪. সংশ্লিষ্ট সদস্য, সদস্যরাষ্ট্র বা আন্তর্জাতিক কর্তৃপক্ষ পরবর্তী  ঘোষণার দ্বারা যেকোন সময় পূর্ববর্তী ঘোষণয় বর্ণিত কাঙ্খিত পরিবর্তনের অধিকার সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে পরিত্যাগ করতে পারে।

           ৫. সংশ্লিষ্ট সদস্য, সদস্যরাষ্ট্র বা আন্তর্জাতিক কর্তৃপক্ষ যেকোন সময় অনুচ্ছেদ ১৬ অনুসারে এই কনভেনশন বাতিলের ঘোষণা আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের মহাপরিচালককে অবহিত করতে পারে৷ এ ঘোষণা পূর্ববর্তী যেকোন ঘোষণার শর্তের ক্ষেত্রে যেকোন পরিবর্তন এবং কনভেনশন প্রয়োগের ক্ষেত্রে বর্তমান অবস্থা ব্যক্ত করবে।

 পরিচ্ছেদ ৪

চুড়ান্ত বিধান

 অনুচ্ছেদ -১৪

আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের মহাপরিচালককে কনভেনশনের আনুষ্ঠানিক অনুমোদন নিবন্ধনের জন্য অবহিত করতে হবে।

 অনুচ্ছেদ- ১৫

১. এই কনভেনশন কেবলমাত্র আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সদস্যভুক্ত সেই সকল রাষ্ট্রসমূহের উপর বাধ্যকর যাদের অনুমোদন পরিচালক কর্তৃক নিবন্ধিত হয়েছে।

২. দুটি সদস্যরাষ্ট্রের অনুমোদন মহাপরিচালক কর্তৃক নিবন্ধিত হওয়ার দিন থেকে ১২ মাস অতিবাহিত হওয়ার পর এই অনুমোদন কার্যকর হবে।

৩. অতঃপর যেদিন উক্ত অনুমোদন কার্যকর হবে সেদিন থেকে ১২ মাস অতিবাহিত হওয়ার পর উক্ত কনভেনশন কার্যকর হবে।

 অনুচ্ছেদ-১৬

১. কনভেনশন প্রথম কার্যকরী হওয়ার দিন থেকে ১০ বছর অতিবাহিত হওয়ার পর তা বাতিল করা যেতে পারে। উক্ত বাতিলকরণ নিবন্ধনের জন্য আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের মহাপরিচালককে অবহিত করতে হবে৷ নিবন্ধিত হওয়ার পর ১ বছর অতিবাহিত না হলে এই বাতিলকরণ কার্যকর হবে না।

২. এই অনুচ্ছেদের পূর্ববর্তী অংশের বিধান অনুসারে প্রত্যেক দশ বছর পর পর এই বাতিলকরণের অধিকার প্রয়োগ করা যাবে।

 অনুচ্ছেদ-১৭

আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের মহাপরিচালক সদস্যভুকত্ প্রত্যেক রাষ্ট্রকে সকল অনুমোদন, ঘোষণা বা বাতিলকরণ নিবন্ধনের জন্য অবহিত করবেন।

 অনুচ্ছেদ-১৮

আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের মহাপরিচালক রেজিষ্ট্রিকৃত সকল অনুমোদন, ঘোষণা এবং বাতিল কার্যক্রম জাতিসংঘ সনদের অনুচ্ছেদ ১০২ অনুসারে  নিবন্ধনের জন্য জাতিসংঘ মহাপরিচালককে অবহিত করবেন।

 অনুচ্ছেদ-১৯

কনভেনশন কার্যকর হওয়ার প্রত্যেক দশ বছর পর আন্তর্জাতিক শ্রম অফিসের গভর্ণিং বডি কনভেনশনের কার্যকারিতার উপর সাধারণ সভায় রিপোর্ট পেশ করবেন এবং সভায়  অধিবেশনের সম্পূর্ণ বা আংশিক পুনঃবিবেচনার বিষয়টি এজেন্ডা আকারে সভায় উপস্থাপন বিবেচনা করবে।

 অনুচ্ছেদ-২০

যদি সভায় বর্তমান কনভেনশনকে সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে পরিবর্তন পুনঃবিবেচনা করে নতুন কনভেনশন প্রণয়ন করা হয় তবে নিম্নলিখিত বিষয়সমূহ অন্তর্ভুক্ত করতে হবেঃ

ক.যদি নতুন কনভেনশন কার্যকর হওয়ার পর কোন সদস্যরাষ্ট্র কর্তৃক অনুমোদিত হয় তাহলে অনুচ্ছেদ ১৬ এর বিধান থাকা সত্বেও পূর্বের কনভেনশন দ্রুত বাতিল করার বিধান থাকতে হবে।

খ.যে তারিখে নতুন কনভেনশন কার্যকর হবে সেদিন থেকে সদস্যরাষ্ট্র কর্তৃক আলোচ্য কনভেনশন অনুমোদন বন্ধ হবে।

এই কনভেনশন সকল ক্ষেত্রেই পূর্বের আকারে প্রকারে সেই রাষ্ট্র সমূহের উপর কার্যকর হবে যারা এই কনভেনশন অনুমোদন করেছেন কিন্তু পরিবর্তিত নতুন কনভেনশন অনুমোদন করেননি।

 অনুচ্ছেদ-২১

এই কনভেনশনের ইংরেজী এবং ফরাসী সংস্করণ সমভাবে গ্রহণযোগ্য।

Print Friendly, PDF & Email

About admin

WpCoderX